ওসি জলিলের তদবীর শুরু – চলছে মামলার প্রস্তুতি

প্রকাশিত: ২:২৮ অপরাহ্ণ, জুন ৩, ২০১৯

ওসি জলিলের তদবীর শুরু – চলছে মামলার প্রস্তুতি

বিশেষ প্রতিবেদকঃ বাড়ী টাংগাইলের ঘাটাইল উপজেলায় তিনি গোয়াইনঘাট থানার ওসি। সিলেট রেঞ্জে আছেন প্রায় ৮ বছর থেকে। একের পর এক বির্তকীত কর্মকান্ড করলেও তদবীরের ঠেলায় বরাবরই বেঁচে যান। গত বছরে গোয়াইনঘাটে যোগদানের পূর্বে ওসি আব্দুল জলিলকে নারী কেলেংকারীর অভিযোগে জৈন্তাপুর থানা থেকে শ্রীমঙ্গল থানায় বদলী করা হয়। দুর্নীতি, চাঁদাবাজী, সাংবাদিক নির্যাতনের অভিযোগে সেখান থেকে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর থানায় সেখান থেকেও একই অভিযোগে সিলেট পুলিশ লাইনে। এরপর তদবীরের ঠেলায় গোয়াইনঘাট থানায় আসেন তিনি। সেখানে আসার পর উর্ধতন অফিসারদের পাত্তাই দিতেন না তিনি। ছিলেন ডিআইজির আস্থাভাজন। কারণ প্রবাসী কল্যান মন্ত্রীকে এক পিকাপ উপঢৌকন পাঠিয়েও পার পেয়ে গিয়েছিলেন রেঞ্জের বড়কর্তার জোরে। সর্বশেষ তার দুর্ব্যবহার সইতে না পেরে থানার সৎ পুলিশ অফিসার সুদীপ বড়ুয়া আত্মহত্যা করেন। সুদীপের মেয়ে শতাব্দির অভিযোগ ‘থানায় মানসিক চাপে বিপর্যস্ত হয়ে’ বাবা আত্মহত্যা করেছেন। সুদীপের স্ত্রী ববি বড়ুয়ার অভিযোগ আমার স্বামী সর্বদাই বলতেন গোয়াইনঘাট থানার ওসি তাহার সাথে দুর্ব্যবহার করেন। দিনরাত চাপের মধ্যে রাখেন। তিনি খুবই সৎ ছিলেন। আমাদের ধারণা তিনি ওই ওসির দুর্ব্যবহার ব্যবহার সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন। এবার পরিবারের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে মামলার প্রস্তুতি। ওসির সাথে ফেঁসে যেতে পারেন ওসির খাস দারোগা জুনেদ আহমদ। জানি ওসি জলিল রাত থেকে তদবীর শুরু করে দিছেন বাঁচার জন্য। কিন্তু এসপি মনিরুজ্জামানও নাছুড়বান্ধা কোন তদবীরে কাজ হবেনা যদি গোপন তদন্তেও সত্যতা পাওয়া যায়।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares

দেশ বিদেশের সবগুলো অনলাইন পত্রিকার লিংক

বাংলাদেশের সকল টিভি চ্যানেল

ভিজিটর কাউন্টার

  • ৮২৭
  • ২৯২
  • ৩৫৬,২৩৬