মঙ্গলবার, ১৪ Jul ২০২০, ০৩:৫৬ অপরাহ্ন

নোটিশ :
অপরাধ বাণীতে আপনাকে স্বাগতম ।  সিলেটসহ সারাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।   আগ্রহীরা আমাদের পত্রিকার ই-মেইলে অথবা সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন। halimshagor2011@gmai.com.Mb.01722062274 অফিস:৩৩৭ রংমহল টাওয়ার(৩য় তলা) বন্দরবাজার সিলেট।
আজকের সংবাদ শিরোনাম :
অবৈধ উপায়ে ইতালি পৌঁছেছেন ৩৬২ জন বাংলাদেশি সিলেটে মাদক জিরো টলারেন্স নীতিতে চলতে কমিশনারের নির্দেশ ভার্চুয়াল আপিল বিভাগ বসবে সপ্তাহে দু’দিন বিএনপি বিষোদগার ছাড়া এ সংকটে জাতিকে কিছুই দিতে পারেনি: ওবায়দুল কাদের মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ফটো সাংবাদিক আজমলসহ আহত ২ গোলাপগঞ্জে ২১হাজার শলাকা বিড়ি সহ গ্রেফতার ১ ঐশ্বরিয়া মেয়েসহ করোনা আক্রান্ত সাহেদ যত বড় ক্ষমতাবানই হোন না কেন, যে কোনো সময় গ্রেফতার : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিলেটে বেড়েছে সব নদীর পানি জুয়ার আসরে পুলিশের অভিযান, আটক ৮ মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিম সুশান্তকে খুন করেছে মার্কিন সেনার আত্মহত্যা কোরবানির একটি পশুও আমদানি করা হবে না চীনা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ সিলেটে প্রতারক চিকিৎসক পুলিশের খাঁচায় ট্যাংকলরি শ্রমিকদের সমাবেশ : ওসি প্রত্যাহারসহ ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম চিরঘুমে সাহারা খাতুন-মা-বাবার পাশে স্বাস্থ্য খাতের অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে : কাদের আর্থিক সহায়তা বাড়ানো হবে করোনা মোকাবেলায় : প্রধানমন্ত্রী খুলছে ব্রিটিশ ভিসা আবেদন কেন্দ্র
খোকার জীবনের শেষ ইচ্ছানুযায়ী অন্তিম সময়ে তাকে দেশে নেয়াও পরিবারের পক্ষে সম্ভব হয়নি
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর ফেসবুক স্ট্যাটাস ভাইরাল

খোকার জীবনের শেষ ইচ্ছানুযায়ী অন্তিম সময়ে তাকে দেশে নেয়াও পরিবারের পক্ষে সম্ভব হয়নি
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর ফেসবুক স্ট্যাটাস ভাইরাল

গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে চিকিৎসাধীন অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা। তিনি দেশে ফেরার আকুতি জানিয়েছেন। বিএনপি নেতারা খোকার পরিবারের বরাত দিয়ে সরকারের কাছে এ বিষয়ে সহায়তা চেয়েছেন।এ নিয়ে রোববার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। এই স্ট্যাটাস এরইমধ্যে ভাইরাল হয়েছে।ফেসবুক পোস্টে শাহরিয়ার আলম লিখেনন, ‘নিউইয়র্কে সাদেক হোসেন খোকার পরিবার ‘ট্রাভেল পারমিট’ এর জন্য আবেদন করলে আমাদের মিশন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। তিনি এবং তার স্ত্রীর যেহেতু পাসপোর্ট নেই, সেহেতু আন্তর্জাতিকভাবে অন্য দেশ থেকে নিজের দেশে ফেরার এটাই একমাত্র ব্যবস্থা।’নিউইয়র্কের কনস্যুলেটে এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়ার কথাও উল্লেখ করেন তিনি। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লিখেন, ‘আমি আমাদের নিউইয়র্কের কনসুলেটে এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছি।’ফেসবুকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরও লিখেন, ‘সাদেক হোসেন খোকা এবং তার স্ত্রীর নামে মামলা আছে, গ্রেফতারি পরোয়ানাও থাকতে পারে (আমি নিশ্চিত নই)। কিন্তু মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়ের সঙ্গে কথা বলে যা জেনেছি, তাদের আসার পর বিষয়টি মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখা হবে।’সংকটাপন্ন অবস্থায় তাকে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের মেমোরিয়াল স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে।খোকাকে দেখতে ছুটে গেছেন তার ছেলে বিএনপির বৈদেশিকবিষয়ক কমিটির সদস্য ইঞ্জি. ইশরাক হোসেন। বাবার জন্য দোয়া কামনা করে তিনি বলেছেন, ‘বাবার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। আপনারা সবাই দোয়া করবেন।’যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, সাদেক হোসেন খোকার শারীরিক অবস্থা পরিবর্তনের আশা ছেড়ে দিয়েছেন সেখানকার চিকিৎসকরা। তারা খোকার সব চিকিৎসা বন্ধ করে দিয়েছেন।খোকার জীবনের শেষ ইচ্ছানুযায়ী অন্তিম সময়ে তাকে দেশে নেয়াও পরিবারের পক্ষে সম্ভব হয়নি। পাসপোর্ট না থাকায় দেশে ফিরতে পারেননি তিনি। পরবর্তী সময়ে কী হবে, এ নিয়ে স্বজনরা বিভ্রান্তিতে আছেন।ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪ মে সপরিবারে নিউইয়র্ক চলে যান সাদেক হোসেন খোকা। তার পর থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নিউইয়র্ক সিটির কুইন্সে একটি বাসায় দীর্ঘদিন ধরে থাকছিলেন বিএনপির এ নেতা।ভিজিট ভিসার নিয়ম অনুযায়ী, ছয় মাস পর পর যাওয়া-আসা করে যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা বৈধ রাখার নিয়ম। ২০১৭ সালে খোকা ও তার স্ত্রী ইসমত হোসেনের পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। তারা নিউইয়র্ক কনস্যুলেটে নতুন পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন। পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নতুন পাসপোর্ট পাওয়ার ব্যাপারে কনস্যুলেট থেকে কোনো সদুত্তর দেয়া হয়নি।হাসপাতালে খোকার পাশে আগে থেকেই আছেন তার স্ত্রী ইসমত হোসেন, মেয়ে সারিকা সাদেক, ছেলে ইশফাক হোসেন। বাবার সংকটাপন্ন অবস্থার খবর পেয়ে ঢাকা থেকে তার বড় ছেলে ইশরাক হোসেনও নিউইয়র্কে ছুটে গেছেন।বাবার সবশেষ শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে ইশরাক হোসেন জানান, পুরো ফুসফুসে ক্যান্সার ছড়িয়ে পড়েছে। অক্সিজেন দিয়ে তার বাবাকে বাঁচিয়ে রাখা হয়েছে। লোকজন এলে কাউকে কখনও কখনও তিনি চিনতে পারছেন বলে মনে হচ্ছে। গত কয়েক দিন থেকে তার চোখ দিয়ে অনবরত পানি ঝরছে।ইশরাক হোসেন বলেন, বড় হতাশা আর বিভ্রান্তির মধ্যে আছি। আব্বু-আম্মু দুজনেরই পাসপোর্ট নেই। কী করব, তাও বুঝে উঠতে পারছি না।২০০২ সালের ২৫ এপ্রিল অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন খোকা। ২৯ নভেম্বর ২০১১ সাল পর্যন্ত টানা ১০ বছর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের শাসনামলে ঢাকা মহানগরের মেয়র ছিলেন তিনি। ২০১৪ সালের ১৪ মে মাসে সাদেক হোসেন খোকা চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্র যান। সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন। এ সময়কালে দেশে তার বিরুদ্ধে কয়েকটি দুর্নীতি মামলা হয়। এর কয়েকটিতে তাকে সাজাও দেয়া হয়েছে।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares

অপরাধ বাণীতে প্রকাশিত সংবাদ পড়ুন, শেয়ার,লাইক,কমেন্ট করে সাথে থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




ভিজিটর কাউন্টার

    © All rights reserved © 2009, থেকে আমাদের যাত্রা চলমান
    Design BY MWD
    aporadhbani.com