চুরির দায়ে যুবককে অমানবিক নির্যাতন

প্রকাশিত: ১১:০৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৪, ২০১৯

চুরির দায়ে যুবককে অমানবিক নির্যাতন

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার পুরাণ বাজারস্থ শাহজালাল ভেরাইটিজ স্টোরের কর্মচারী ফরহাদ মিয়া (২৫)’কে চুরির অভিযোগে আটকে মারধর করা হচ্ছিল। খবর পেয়েে ফরহাদের মা থানা পুলিশের কাছে তার ছেলেকে দোকানের মালিক আবদুর রউফের বাড়িতে দরজা বন্ধ করে অমানবিক নির্যাতন করা হচ্ছে এমন অভিযোগ করলে সোমবার দুপুরে পুলিশ আহত অবস্থায় ফরহাদকে উদ্ধার করে। আহত দোকান কর্মচারী ফরহাদ কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম উপজেলার উছমানপুর গ্রামের আবু মিয়ার পুত্র। এ ঘটনায় বিশ্বনাথ থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

দীর্ঘদিন ধরে উপজেলা সদরের পুরাণ বাজার এলাকাস্থ মানিক মিয়ার কলোনীতে নিজের পরিবারের সাথে বসবাস করছে আহত ফরহাদ মিয়া। এই সুবাদে শাহজালাল ভেরাইটিজ স্টোরে দীর্ঘদিন ধরে কর্মচারী হিসেবে কাজ করছিল। সোমবার দুপুরে দোকানের মালামাল চুরির অভিযোগে তাকে গালিগালাজ করেন দোকানের স্বত্ত¡াধিকারী আবদুর রউফ। একপর্যায়ে ফরহাদ মিয়াকে আবদুর রউফের পুত্র এ কে রাজু ও আবদুস সালাম মোটর সাইকেলে তুলে উপজেলার হরিকলস গ্রামস্থ তাদের বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর একটি ঘরে দরজা বন্ধ করে মারধর করেন। ছেলেকে দোকানের মালিকেরর বাড়িতে দরজা বন্ধ করে মারধর করা হচ্ছে খবর পেয়ে ফরহাদকে বাঁচাতে তার মা মনোয়ারা বেগম বিশ্বনাথ থানায় ছুটে গিয়ে পুলিশের সহযোগিতা চান।

এরপর বিশ্বনাথ থানার এসআই দেবাশীষ শর্ম্মার নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার হরিকলস গ্রামস্থ আবদুর রউফের বাড়ি থেকে ফরহাদকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত এ কে রাজু বলেন, ফরহাদ আমাদের দোকান থেকে মাল চুরি করে। দোকানের মাল চুরির কারণে এসময় তাকে স্থানীয় জনতা মারধর করেন। আমরা জনতার হাত থেকে তাকে রক্ষা করে ও চুরি হওয়া মাল উদ্ধার করার জন্য আমাদের বাড়িতে নিয়ে যাই। আমাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সঠিক নয়।

দোকান কর্মচারী ফরহাদকে আহত অবস্থায় দোকানের মালিক আবদুর রউফের বাড়ি থেকে উদ্ধার করার সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মুসা বলেন এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares

দেশ বিদেশের সবগুলো অনলাইন পত্রিকার লিংক

বাংলাদেশের সকল টিভি চ্যানেল

ভিজিটর কাউন্টার

  • ৭৬
  • ১৭৭
  • ৩৬৫,৬০২